হল্টেডের তালিকা শুন্য।এইমস ও গ্রামীন মিউচুয়াল ফান্ড তালিকাচ্যুত! ইনডেক্স বাড়লেও দর কমেছে অধিকাংশ কোম্পানীর।

0
(0)

TMPDOODLE1456510301612

টানা ছয় কার্যদিবস পর দেশের উভয় শেয়ার বাজারে আজ ইনডেক্স বাড়লেও দর কমেছে অধিকাংশ কোম্পানীর।একদিকে লেনদেন কমেছে আশঙ্খা জনক হারে অন্যদিকে আজ টপটেন গেইনার লিষ্টে কোনো কোম্পানীকে হল্টেড হতে দেখা যায়নি।ক্লোজ প্রাইস অনুযায়ী আজ সর্বোচ্চ ৭.৭৭% দর বেড়েছে জেড ক্যাটাগরী ভুক্ত কে এন্ড কিউ কোম্পানীর।ধারনা করা হচ্ছে গত কিছু দিনের বাজার আচরনে বিনিয়োগকারীরা আগের চেয়ে অধিক সতর্ক এবং সচেতন।কোনো শেয়ারের দর বাড়লেই পেনিক হয়ে বিনিয়োগকারীরা ক্রয় করার সাহস পাচ্ছেন না।যার ফলে আজ হল্টেডের তালিকা শুন্য।এইমস ও গ্রামীন ওয়ান মিউচুয়াল ফান্ডের তালিকাচ্যুতির সেল প্রেসারে গত ৬ কার্যদিবসের টানা পতনের প্রধান কারন ছিল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সপ্তাহের পঞ্চম ও শেষ কার্যদিবস
বৃহস্পতিবার প্রধান পুঁজিবাজার
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক
সামন্য বেড়ে শেষ হয়েছে এদিনের
লেনদেন কার্যক্রম। এছাড়া অন্য
শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক
এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকে মিশ্র
প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। তবে এদিন
উভয় পুঁজিবাজারে কমেছে
লেনদেনের পরিমান।
উভয় পুঁজিবাজারে এদিন মোট
লেনদেন কমেছে ২৫৪ কোটি ৬৬
লাখ টাকার বেশি। যার মধ্যে
ডিএসইতে কমেছে ২৪১ কোটি ৪৭
লাখ টাকা এবং সিএসইতে কমেছে
১৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা।
ডিএসই
এদিন ডিএসইতে টাকার অঙ্কে মোট
লেনদেন হয়েছে ৩৩৬ কোটি ৯৬ লাখ
টাকা। গত বুধবার লেনদেন হয়েছিল
৫৭৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। সুতরাং
এক কার্যদিবসের ব্যবধানে ডিএসইতে
লেনদেনে কমেছে ২৪১ কোটি ৬৬
লাখ টাকার বেশি।
লেনদেন কমলেও প্রধান সূচক
ডিএসইএক্স ১০ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট বৃদ্ধি
পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৪৭২
পয়েন্টে। এছাড়া ডিএসইএস বা
শরীয়াহ সূচক ২ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট বৃদ্ধি
পেয়ে ১ হাজার ৮৬ পয়েন্টে এবং ৫
দশমিক ৪০ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে
ডিএসই-৩০ সূচক দাঁড়িয়েছে ১ হাজার
৭১৮ পয়েন্টে।
এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া
৩১৬টি কোম্পানির মধ্যে দাম
বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ১৪৩টির
এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ৪৭টি
কোম্পানির শেয়ার দর।
এছাড়া টাকার অঙ্কে এদিন
ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০
কোম্পানি হলো- লংকা-বাংলা
ফিন্যান্স, ওরিয়ন ফার্মা, ইউনাইটেড
পাওয়ার, সামিট পাওয়ার, কাশেম
ড্রাইসেল, বেক্স ফার্মা, সিএমসি
কামাল, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট,
সিঙ্গার বাংলাদেশ ইফাদ অটো।
সিএসই
অন্যদিকে এদিন সিএসইতে মোট
শেয়ার লেনদেনের পরিমান ২২
কোটি ৫১ লাখ টাকা। গত বুধবার
লেনদেন হয়েছিল ৩৫ কোটি ৭০ লাখ
টাকার শেয়ার। সুতরাং এক
কার্যদিবসের ব্যবধানে সিএসইতে
শেয়ার লেনেদেন কমেছে ১৩
কোটি ১৯ লাখ টাকা।
বৃহস্পতিবার সিএসইতে প্রধান সূচক
সিএসসিএক্স ১ দশমিক ৩৩ পয়েন্ট কমে
দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৩৬৭ পয়েন্টে।
সিএসই-৩০ সূচক ১৫ দশমিক ৭২ পয়েন্ট
কমে ১২ হাজার ৪৭০ পয়েন্টে
দাঁড়িয়েছে। সিএসই-৫০ সূচকের
কোনও পরিবর্তন না হয়ে ১ হাজার ৩
পয়েন্টেই অবস্থান করছে। এছাড়া
সিএএসপিআই সূচক প্রায় এক পয়েন্ট
বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার
৭৭২ পয়েন্টে।
এদিন সিএসইতে লেনদেন হওয়া
২২০টি কোম্পানির মধ্যে দাম
বেড়েছে ৮৭টির, কমেছে ৯৬টির এবং
কোনও পরিবর্তন হয়নি ৩৭টি
কোম্পানির শেয়ার দর।
টাকার অঙ্কে এদিন সিএসইতে
লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি
হলো- লংকা-বাংলা ফিন্যান্,
প্রিমিয়ার সিমেন্ট, ইউনাইটেড
পাওয়ার, সিঙ্গার বাংলাদেশ,
ন্যাশনাল ব্যাংক, লাফার্জ সুরমা
সিমেন্ট, সামিট পাওয়ার, বেক্স
ফার্মা, ওরিয়ন ফার্মা এবং
আইটিসি।

Rate This

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

As you found this post useful...

Follow us on social media!