শেয়ার বাজার সম্পর্কিত ফেসবুক এডমিনদের প্রতারনার অতীত বর্তমান পর্ব-১

0
(0)

images(1)সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাঙের ছাতার মত শেয়ার বাজার সম্পর্কিত অসংখ্য গ্রুপ ও পেজ গড়ে উঠেছে।images

images(2)এসব গ্রুপের অধিকাংশ এডমিন নিজেই ক্ষুদ্র ও ক্ষতিগ্রস্থ বিনিয়োগকারী হওয়ায় এদের ফাঁদে পা দিয়ে হাজারো বিনিয়োগকারী নিঃস্ব হচ্ছেন।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে বিনামূল্যে ফেসবুক গ্রুপ ও পেজ ক্রিয়েট করা সহজলব্য হওয়ায় যে কেউ ইচ্ছা করলে খুব সহজেই যেকোনো নামে গ্রুপ বা পেজ ক্রিয়েট করে যে যে বিষয়ের উপর দক্ষ সে সেই বিষয়ের উপর আর্টিকেল লিখে নিজের দক্ষতা প্রকাশ করতে পারে।যার আর্টিকেল যত ভাল এবং ফলপ্রসূ হয় ওই পেশায় তার মর্যাদা ততই বৃদ্বি পায়।যে কারনে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ এখন ঘরোয়া আড্ডার পরিবর্তে ইন্টারনেটের বদৌলতে ব্লগ পোষ্টিং,গ্রুপ পোষ্টিং,পেজ পোষ্টিং,ফোরাম পোষ্টিং ও কমেন্ট পোষ্টিংয়ের মাধ্যমে আর্টিকেল লিখে যার যার দক্ষতা প্রকাশ করে থাকেন।তাদের আর্টিকেল পড়েই ফ্যানরা বোঝতে পারে ওই পেজ বা গ্রুপের এডমিনের দক্ষতা কেমন।২০০৯-২০১০ সালে ফেসবুকে প্রথম বারের মত শেয়ার বাজার বিষয়ক ২-৩ টি গ্রুপ পেজ দেখা যায়।ওইসময় এইসব গ্রুপ পেজে আর্টিকেল লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন আইটেম সম্পর্কে সত্য অসত্য আগাম তথ্য ফাঁস করা হত।সেই সময় বাজার হাই পাওয়ার ঊর্ধমুখি থাকায় ওই গ্রুপ বা পেজের ফ্যান ও মেম্বাররা বেশ উপকৃত হয়েছিলেন।তখনকার এডমিনদের এত মূল্যায়ন ছিল যে,মেম্বাররা একেকজন এডমিনকে শুধু বস নয় শেয়ার বাজারের বাদশা মনে করত।

মেম্বারদের এই সরলতার সুযোগ নিয়ে এডমিনরা বিভিন্ন আইটেমে গুজব ছড়িয়ে মেম্বারদেরকে দিয়ে বাই করিয়ে গ্রুপ ভিত্তিক গেম্বলিং ক্রিয়েট করা শুরু করল।সেই সময় বাজারে আইটেম কম থাকায় এবং লেনদেন বেশী হওয়ায় গুজব ছড়িয়ে খুব সহজেই যে কোনো আইটেমে গেম করা যেত। বিষয়টি তৎকালীন এসইসি বর্তমান বিএসইসির নজরে আসলে ২-৪ জন এডমিনকে শাস্তি দেয়ার পাশাপাশি ফেসবুকে শেয়ার বাজার সম্পর্কিত গুজব ছড়ানো দন্ডনীয় অপরাধ বলে ঘোষনা দেয়া হয়।এর পর থেকেই গাঁ ঢাকা দেয় ওইসময়কার এডমিনরা।বন্দ্ব হয়ে যায় ফেসবুকের গুজব ভিত্তিক ট্রেডিং।বর্তমানেও বিএসইসির সেই নির্দেশনা ডিএসই ওয়েব সাইটে প্রদর্শিত হচ্ছে।এই নির্দেশনাকে উপেক্ষা করেও বর্তমানে ফেসবুকে অসংখ্য গ্রুপ/পেজের এডমিন তাদের নিজেদের হোল্ডিংকৃত আইটেম নিয়ে জোড় প্রচারনা চালায় ঠিকই কিন্তু তাদের প্রচারনায় এ যাবত কোনো আইটেমে বিন্দু মাত্র প্রভাব পড়তে দেখা যায়নি।কারন গ্রুপে তাদের লেখার ধরন দেখলেই বোঝা যায় যে,এইসব এডমিন ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী।আগামি পর্বে বর্তমানে ফেসবুকে সক্রিয় এমন ২-৪ জন ক্ষতিগ্রস্থ এডমিনের ইক্যুইটি সহ বিস্তারিত আলোচনা করব।

Rate This

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

As you found this post useful...

Follow us on social media!