শেয়ার বাজারঃ চলতি সপ্তাহ কেমন যেতে পারে! বাজারকে অস্থিতিশীল করার জন্য অসাধু চক্রের হাতে কি কোনো ইস্যু আছে!

0
(0)

car-mechanic-working-auto-repair-service-professional-35581655প্রতিদিন শতাধিক মেইল আসে।সবার জিজ্ঞাসা একটাই আদৌ কি বাজার ভাল হবে? জবাব আমার একটাই, আমার দৃষ্টিতে বাজার বেশ ভাল আছে। থেমে থেমে দর পতনের মাঝে কৌশলী বিনিয়োগকারীরাই সবচেয়ে বেশী প্রফিট করে। বিশেষ করে সেক্টর ওয়াইজ, ক্যাপিটাল পেইড ওয়াইজ, ক্যাটাগরী ওয়াইজ যখন শেয়ার দর আপ ডাউন করে তখন স্মার্ট বিনিয়োগকারীরা মুভমেন্ট অনুযায়ী বুল্লিশ আইটেম গুলোতে সাঁতার কেটে শর্ট টাইমে আপ মার্কেটের চেয়ে বেশী প্রফিট করে। পতনের মার্কেটের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল হট বা প্রফিটাবল আইটেমটি এক নজরেই সিলেক্ট করা যায় কিন্তু আপ মার্কেটে সবুজের ভিড়ে সবচেয়ে হট প্রফিটাবল আইটেমটি খুজে পাওয়া বড়ই কঠিন।পতন মার্কেটের প্রফিটাবল আইটেমটি মার্কেট যত পতন হয় ততই দর বাড়ে অপরদিকে আপ মার্কেটের হট আইটেমটি মার্কেট কারেকশনে গেলেই যতটুকু বেড়েছিল তার চেয়ে বেশী কমে।তবে ডাউন মার্কেটের হট আইটেমটি আপ মার্কেটে বাড়েও না কমেও না।

এরকম মার্কেটে এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় সুবিধা।এতে আপ ডাউন উভয় মার্কেটই উপভোগ করা যায়।পতনের সময় যে আইটেমটি বিনা কারনে সব চেয়ে বেশী দর পতন হয় আপ মার্কেটে সেই আইটেমটি সবচেয়ে বেশী বাড়ে।অন্যদিকে আপ মার্কেটে যে আইটেমটি অকারনেই বেশী পতন হয় ডাউন মার্কেটে সেই আইটেমটি ঘুরে দাড়ায়।এটা হচ্ছে আমার ট্রেডিং অভিজ্ঞতার সেন্টিমেন্টাল এনালাইসিস।আমি কোনো এনালিষ্ট না।দক্ষ কোনো ট্রেডারও নই।আমি আপনাদের মতই একজন সাধারন বিনিয়োগকারী। প্রায় শতাধিক টিউটোরিয়াল ভিডিও দেখে ফান্ডামেন্টাল,টেকনিক্যাল ও সেন্টিমেন্টাল এনালাইসের উপর যেটুকু ধারনা পেয়েছি তাতেই আপ ডাউন উভয় মার্কেট আমার জন্য আনন্দ দায়ক।কারন আপে যাওয়ার আগে ইনডেক্স আমাকে সিগন্যাল দেয় আবার ডাউনে যাওয়ার সময়ও সিগন্যাল দেয়।আইটেম গুলো ও আপে যাওয়ার আগে আমাকে সিগন্যাল দেয় ডাউনে যাওয়ার আগেও আমাকে সিগন্যাল দেয়। এই সিগন্যালই আমার শেয়ার বাজারে সব চেয়ে বড় পুঁজি। এই সিগন্যাল বোঝার প্রতিভা যতদিন থাকবে নিজে শেয়ার ব্যবসা না করলেও বিনা পুঁজিতে শেয়ারের প্রফিট এসে দরজায় সব সময় নখ করবে এবং করতেও আছে।যাই হোক গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ইনডেক্সের লাইন চার্ট, বার চার্ট এবং বুল্লিশ ক্যান্ডেল সব ইনডিকেটরই সামনের সপ্তাহে বাজার ঊর্ধমুখী হওয়ার আভাস দিচ্ছে।তাই টেকনিক্যাল এনালাইসিস এ বাজার আজ রবিবার থেকে পজিটিভ থাকার সম্ভাবনা।তবে ডিএস ই নির্বাচন একটি সেন্টিমেন্টাল ইস্যু।সেই ইস্যু যদি পজিটিভ হয় তাহলে বাজার অবশ্য পজিটিভ হবে কিন্তু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যদি অসাধু চক্র ফায়দা হাসিল করতে গিয়ে বরাবরের মত কোনো গুজব রটায় তাহলে বাজার তার স্বাভাবিক গতি হারিয়ে হয়তঃ অস্বাভাবিক ঊর্ধমুখী নয়তোঃ অস্বাভাবিক নিন্ম মুখী হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

Rate This

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

As you found this post useful...

Follow us on social media!