একমি নিয়ে সাপ লুডু খেলা! সার্বিক বাজারে নেতিবাচক প্রভাব যেন না পড়ে!!

0
(0)

imagesসদ্য তালিকাভুক্ত একমি ল্যাবরেটরিজের শেয়ার নিয়ে বাজার সংশ্লিষ্টদের অনেকেই সাপ লুডু খেলায় মেতে উঠেছেন।এই খেলায় সফল হলে একমি হোল্ডাররা সাময়িক লাভবান হলেও বাজারের অন্যান্য আইটেমে এর বিরুপ প্রভাব পড়ে সার্বিক বাজারকে পতনের দিকে ঠেলে দিতে পারে।আমাদের জানামতে গত ৫ বছরে ১০০ বেশী কোম্পানী বাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে কিন্তু ইতিপূর্বে একমির মত কোনো কোম্পানী এত আলোচিত সমালোচিত হয়ে বাজারে আসেনি।একমি নিয়ে অত্যধিক আলোচনা ও সমালোচনার বিশ্লেষন করলে বড় ধরনের কারসাজির আভাস পাওয়া যায়।তালিকা ভুক্তিতে নিলামে দর কষাকষি করে বুক বিল্ডিং পদ্বতিতে প্রাতিষ্টানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারন বিনিয়োগকারীদের শেয়ার বন্টন এবং পৃথক দর নির্ধারনের বৈষম্য নিয়ে শুরুতেই একমি আলোচিত হয়।তালিকাভুক্তির পর একমির শেয়ার দরের লাগাম টেনে ধরতে বাজার সংশ্লিষ্টদের বরাত দিয়ে পত্র পত্রিকায় বিশেষ সতর্ক বার্তা একমির সমালোচনাকে আরো বহু গুনে উস্কে দিয়েছে।

লেনদেন শুরুর আগের সপ্তাহেই মার্কেটে কত আসবে না আসবে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়েছিল।নতুন নিয়মানুসারে তালিকাভুক্তির একমাসের মধ্যে ওই কোম্পানীর জন্য মার্জিন ঋন দেয়া হয় না।যা বিনিয়োগকারীদের সবার জানা থাকা সত্বেও একমির জন্য নতুন করে এই বিশেষ ঘোষনা ও সতর্ক বানী আসায় একমির সমালোচনা আরো বেড়ে যায়।সতর্ক বার্তার এক পর্যায়ে বলা হয়েছে যে, ‘একমি বিনিয়োগকারীদের লোভের সৃষ্টি করতে পারে’ এই কথাটিতেই গেম্বলিংয়ের আভাস খোজে পাওয়া যায়।এই গেম্বলিং থেকে সাধারন বিনিয়োগকারীদের দূরে রাখার কৌশল হিসেবেই বিশেষ সতর্ক বানীকে হাই লাইট করে পেনিক দেয়া হয়েছে।তা না হলে একমি যে সিস্টেমে মার্কেটে এসেছে তাতে লেনদেনের শুরুতে ব্যাপক আগ্রহের কারনে ১৮০-২০০ টাকা লেনদেন হলেও খুব বেশী বলে মনে হত না।১০ টাকা ইস্যু মূল্যের শেয়ার যদি মার্কেটে এসে ৭০ টাকায় লেনদেন হয় তাহলে ৭৭ টাকার শেয়ার ১৮০ টাকা মোটেও বেশী নয় কিন্তু ১৩৫ টাকায় একমি লেনদেন হওয়ায় এই দরকে অনেকেই বেশী দর বলে প্রচার করতে দেখা গেছে।যা ইতিপূর্বে লিষ্টেড হয়ে কোনো কোম্পানীর দর ২০০% বেড়ে গেলেও এরকম হাইলাইট করে প্রচার করতে দেখা যায়নি।ধারনা করা হচ্ছে শেয়ার হাতিয়ে নেয়ার জন্যই এই অপপ্রচার করা হচ্ছিল।তাইতো যারা পেনিক দিয়ে অপপ্রচার করছিল তারাই এখন একমির প্রশংসা মূলক প্রচার নিয়ে ব্যস্ত।কোনো নিউজ দেখে পেনিক বা লোভী হওয়ার আগে নিউজের উদ্দেশ্যটা বিশ্লেষন করা উচিত।একমি নিয়ে সর্বত্র যে আলোচনা সমালোচনা চলছে তাতে যদি একমির শেয়ার দরে বড় ধরনের উস্ফোলন ঘটে তাহলে অন্যান্য শেয়ারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে সার্বিক বাজার নেতিবাচক হতে পারে।

Rate This

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

As you found this post useful...

Follow us on social media!